সজিব হত্যাকাণ্ড অরাজনৈতিক : লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফ

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

লক্ষ্মীপুরে কৃষকদলের নেতা সজিব হোসেনের হত্যাকাণ্ড একটি অরাজনৈতিক ঘটনা। পুলিশ বা কারও গুলিতে নয়, বরং ধারালো অস্ত্র বা ছুরির আঘাতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার মো. মাহফুজ্জামান আশরাফ।

১৯ জুলাই বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় পুলিশ সুপার কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সব জানিয়েছেন তিনি।

এই বিষয়ে পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফ বলেন, মরদেহ উদ্ধারের স্থান থেকে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। সজিব আহত অবস্থায় ফিরোজা ভবন নামে একটি বাসায় ঢুকে পড়ে। মৃত্যুর আগে সেখানকার এক ব্যক্তির সঙ্গে সজিবের কথা হয়েছে। সজিব ওই ব্যক্তিকে বলেছে, তিনি বিএনপির প্রোগ্রামে আসেননি। চার-পাঁচজন লোক তাকে কুপিয়েছে। তার কাছে তারা টাকা পায়। তিনি বিয়েও করেছেন। এরপর সজিব আর কোনো কথা বলতে পারেননি।

ঘটনাস্থলে থাকা ব্যক্তিরা ৯৯৯-এ কল করে সজিবের চিকিৎসার জন্য পুলিশের সহযোগিতা চেয়েছেন। কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্স চালককেও কল করেন।কিন্তু বিএনপির হামলার ঘটনার কারণে অ্যাম্বুলেন্স চালকরা যেতে পারেননি।

পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, পুলিশ যাওয়ার আগেই প্রচুর রক্তক্ষরণে সজিব মারা যায়। বিএনপির হামলায় ২৫-৩০ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। এবং তারা হাসপাতাল ও দোকানঘর ভাঙচুর করেছে। কয়েকটি মোটরসাইকেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে বলে জানিয়েছেন।

মঙ্গলবারের সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে মামলার প্রস্তুতি চলতেছে বলে জানিয়েছেন, পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফ

নিহত সজিব হলেন লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের ধন্যপুর গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *